জেন নিন ল্যাপটপ ভালো রাখার কিছু টিপস । যা কাজে লাগতে পারে আপনারও

AHK Tech Studio তে আপনাদেরকে আবারো স্বাগতম। আশা করি সবাই ভালোই আছেন। আর ভালো আছেন বলেই আমাদের ব্লগের এই নতুন আর্টিকেলটি পড়তে বসেছেন। গত আর্টিকেলে আমি আপনাদেরকে স্মার্টফোন ভাল রাখার কিছু টিপস দিয়েছিলাম আর স্মার্টফোন ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আমরা যে ভুলগুলো করি সেগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছিলাম । তো আজকে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে ল্যাপটপ ভাল রাখা যায় । 

আমাদের অনেকেরই হয়তো ল্যাপটপ আছে । স্মার্টফোন ব্যবহারের পাশাপাশি অনেকেই ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকি । স্মার্টফোন ব্যবহার করার ক্ষেত্রে আমরা যে ভুলগুলো করি সেগুলোর অনেক গুলোই ল্যাপটপের বেলায়েও দেখা যায় । তাই আজকে আমরা ল্যাপটপ ভাল রাখার কিছু পদ্ধতি সম্পর্কে জানবো আমাদের আজকেই এই পোস্টে । সাথে আছি আমি MD A H Kawsar. আপনারা দেখছেন AHK Tech Studio.

মূল আলোচনায় যাওয়ার আগে সবার কাছে আমার রিকুয়েস্ট, যারা আমাদের ব্লগটি এখনো সাবস্ক্রাইব করেন নি তারা এখনি সাবস্ক্রাইব করে দিন আর আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে একদমই ভুলবেন না। তাহলে নিত্যনতুন আর্টিকেল আর ভিডিও পেয়ে যাবেন সবার আগে।

অনলাইন ডেস্ক, টেকজুমডটটিভি/কম্পিউটার আবিষ্কারের পর বিভিন্ন সুবিধার কারণে ল্যাপটপের জনপ্রিয়তা চোখ ধাঁধানো। যদিও প্রফেশনাল কাজের জন্য ডেস্কটপই উপযুক্ত, তবুও বতর্মানে যান্ত্রিক মানুষের কাছে ল্যাপটপেরই কদর বেশি। আর তথ্য প্রযুক্তির এই যুগে একটি ল্যাপটপ আপনার কাছে কতটা প্রিয় তা আর বাড়িয়ে বলার অপেক্ষা রাখে না।

ল্যাপটপ কিনে ব্যবহার করলেই চলবে না। আমাদের প্রয়োজন ল্যাপটপের দীর্ঘদিন সার্ভিস। তাই আপনার প্রিয় ল্যাপটপটির সার্ভিস বাড়াতে নিচের টিপসগুলো অনুসরণ করুন।

ব্যাটারির যত্ন:

১. ব্যাটারির লাইফ টাইম বাড়াতে স্কিনের ব্রাইটনেস কমিয়ে ব্যবহার করুন।

২. ব্যাটারি কানেক্টরের লাইন মাঝে মাঝে পরিষ্কার করুন।

৩. সবসময় চার্জার লাগিয়ে রেখে চার্জ দিবেন না। সপ্তাহে ২ থেকে ৩ দিন ব্যাটারি দিয়ে ল্যাপটপ চালান।


প্রসেসরের যত্ন:

১. প্রসেসরের উপর চাপ কমাতে অপ্রয়োজনীয় প্রোগ্রাম বন্ধ রাখুন।

২. কম দরকারি উইন্ডো গুলো মিনিমাইজ করে রাখুন।

৩. হার্ডডিস্ক ও সিপিইউ এর মেইনটেন্স এর সময় কোন প্রকার কাজ করা উচিত নয়।

৪. মাসে দুই তিন বার হাডর্ডিস্ক ডিফ্রাগমেন্ট করুন।


স্ক্রিনের যত্ন:

১. সরাসরি সূর্যের আলোয় ল্যাপটপ ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।

২. নিয়মিত স্ক্রিন পরিস্কার রাখুন। কাজ না করলে ঢেকে রাখুন।

৩. কির্বোড ও ল্যাপটপের ডিসপ্লে ধুলোর থেকে রক্ষার জন্য স্ক্রিন ও কির্বোড প্রটেক্টর ব্যবহার করুন।


অন্যান্য:

১. ল্যাপটপের সিডি/ডিভিডি রমের ক্ষমতা কম থাকে তাই সব সময় হার্ডডিস্ক থেকে মুভি/গান চালাবেন।

২. এয়ার ভেন্টের পথ খোলা রেখে সহজে বাতাস চলাচল করে এমন স্থানে ল্যাপটপ রেখে কাজ করুন।

৩. দরকার ছাড়া ব্লু-টুথ এবং ওয়াই-ফাই কানেকশন বন্ধ রাখুন।

৪. ম্যালওয়ার-অ্যাডওয়ার জাতীয় ক্ষতিকারক সফটওয়ার ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন এবং ভাল মানের এন্টিভাইরাস ব্যবহার করুন।



শেষ কথাঃ ল্যাপটপ আমাদের যার যার । তাই সেটার যত্ন আমাদের নিজেদেরকেই নিতে হবে । আজকের পোস্টটিতে ল্যাপটপের কিছু সাধারণ যত্ন নিয়ে লিখলাম। যত্ন গুলো সাধারণ হলেও আমরা বেশির ভাগ মানুষই তা মানি না, ফলে ল্যাপটপের সমস্যা নিয়ে কিছুদিন পর পরই সার্ভিসিং এ যাই। একটু সতর্ক হোন আর এই সাধারনণ যত্ন গুলোই ফলো করুন দেখবেন অসধারণ ফল পাচ্ছেন।

তো এই ছিলো আজকের বিস্তারিত আলোচনা। জানি না কতটুকু বুঝাতে পেরেছি বা কতটুকু গুছিয়ে লিখতে পেরেছি। তবে আমি আমার সবটুকু দিয়ে চেষ্টা করেছি আপনাদের বুঝানোর জন্য। যাই হোক, আর্টিকেলটি যদি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবেন। আর আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে একদমই ভুলবেন না। আবার হাজির হবো নতুন কোনো আর্টিকেল নিয়ে। ততক্ষন পর্যন্ত সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।


"আল্লাহ হাফেজ"

0 Comments