আপনি কি জানেন ইন্টারনেটের মালিক কে ?


হ্যালো বন্ধুরা, TechRajjo.Com – Create Your Own Creativity তে আপনাকে স্বাগতম । কেমন আছেন সবাই ? নিশ্চয় ভালো আছেন । আর ভালো আছেন বলেই হয়তো আমাদের টেক রাজ্য থেকে আপনার পছন্দের এই আর্টিকেলটি পড়তে বসছেন । আমরা আমাদের টেক রাজ্যে প্রতিনিয়ত প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন আর্টিকেল শেয়ার করে থাকি । যাতে মানুষ প্রযুক্তিকে সহজে জানতে ও বুঝতে পারে ।  তারই ধারাবাহিকতায় আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি প্রযুক্তি বিষয়ক আরেকটি আর্টিকেল পোস্টের টাইটেল পড়ে এতক্ষণে নিশ্চয় বুঝে গেছেন যে, আজকে আমরা কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো ।

আমরা দুই ঘণ্টা না খেয়ে থাকতে পারি বা পাঁচ ঘণ্টা টিভি না দেখে থাকতে পারি অথবা কয়েক ঘণ্টা গার্লফ্রেন্ড এর সাথে কথা না বলে থাকতে পারি । কিন্তু বর্তমান সময়ে ইন্টারনেট ছাড়া এক ঘণ্টাও থাকা প্রায় অসম্ভব । ইন্টারনেট ছাড়া আমরা গতিহীন হয়ে পড়বোইন্টারনেট বর্তমানে মানুষের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় একটা জিনিস । একই সাথে এটি মানুষের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে । কিন্তু আপনি কি কখনো ভেবেছেন .........

১। ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে ?
২। কিভাবে আপনার কাছে পৌঁছায় ?
৩। কেনই বা মাঝে মাঝে সার্ভার ডাউন হয়ে যায় ?
৪। ইন্টারনেটের  মালিক ?
৫। আর ইন্টারনেটের জন্য কতই বা খরচ হয় ?

আজকে এই সকল প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করবো ।

তার আগে আপনার কাছে আমাদের রিকুয়েস্ট, আপনি যদি আমাদের ব্লগটি সাবস্ক্রাইব না করে থাকেন, তাহলে এখনি সাবস্ক্রাইব করে নিন । তাহলে প্রযুক্তি বিষয়ক নিত্যনতুন আর্টিকেল সবার আগে পৌঁছে যাবে আপনার কাছে ।

তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে মূল আলোচনায় ফিরে যাই ।

ভারত বাংলাদেশসহ পৃথিবীর সমস্ত দেশ ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত । কিন্তু আপনি কখনো ভাবেন নি যে ইন্টারনেট কিভাবে কাজ করে ? আপনি হয়তো ভেবেছেন ইন্টারনেট স্যাটেলাইটের সাহায্যে চলে । অথবা সারা পৃথিবীতে যে নেটওয়ার্ক বিছানো আছে তার মাধ্যমে । কিন্তু আপনি হয়তো জানেন না যে ৯৯% ইন্টারনেট চলে Optical Fiber Cable এর মাধ্যমে । আর বাকি ১% ইন্টারনেট চলে স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ।

কিন্তু আপনি হয়তো প্রশ্ন করতে পারেন যে, আমি তো মোবাইল থেকে ইন্টারনেট ব্যবহার করছি । এখানে তো কোন তার বা কেবল নেই ?

আসলে আপনার মোবাইলে যে টাওয়ার থেকে নেটওয়ার্ক আসছে , সেই টাওয়ার থেকে শুরু করে আপনি যে ওয়েবসাইট ভিজিট করছেন তার সার্ভার পর্যন্ত Optical Fiber Cable বিছানো আছে । আমি আরেকটু বিস্তারিত বলার চেষ্টা করছি ।
ইন্টারনেটের মাধ্যমে যে তথ্য আপনার কাছে এসে পৌঁছায়, সেটা তিনটি আলাদা স্তরের মাধ্যমে আসে । এই স্তরগুলোকে টিয়ার (Tier) বলা হয় । টিয়ার তিনটি হল – Tier 1, Tier 2, Tier 3.

Tier-1:

Tier 1 হল সেই সমস্ত কোম্পানি যারা নিজেদের টাকায় সমুদ্রের নিচে অপটিক্যাল ফাইবার কেবল বিছিয়ে রেখেছে । বিভিন্ন দেশে আলাদা আলাদা টিয়ার কোম্পানি আছে । যারা এক দেশ থেকে আরেকদেশে সমুদ্রের মধ্য দিয়ে কেবল বিছিয়ে সারা পৃথিবীকে যুক্ত করেছে । এভাবে কোন একটি দেশের এক প্রান্তে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবলের ল্যান্ডিং পয়েন্ট রয়েছে । আপনি যখন কোন ওয়েবসাইট সার্চ করেন তখন এই ল্যান্ডিং পয়েন্ট হয়ে তারপর সেই ওয়েবসাইটের সার্ভার পর্যন্ত যায় । এভাবে সার্চকৃত ওয়েবসাইটের সার্ভার যদি অনেক দূরে হয়ে থাকে তাহলে একাধিক ল্যান্ডিং পয়েন্ট হয়ে তারপর সেই সার্ভার পর্যন্ত পৌঁছায় । এক্ষেত্রে অনেক দেশের ল্যান্ডিং পয়েন্ট হয়েও সার্ভার পর্যন্ত পৌছাতে পারে । আপনি www.submarinecablemap.com এই ওয়েবসাইটে গেলে দেখতে পারবেন পৃথিবীর কোন দেশের কোথায় কতগুলো ল্যান্ডিং পয়েন্ট রয়েছে এবং সেগুলো কিভাবে একটির সাথে আরেকটি যুক্ত রয়েছে । এবার সেই ল্যান্ডিং পয়েন্ট থেকে দেশকে বিভিন্ন রাজ্যে , এবং রাজ্যকে বিভিন্ন জেলায় জেলায় বিভক্ত করে আপনার হাত পর্যন্ত ইন্টারনেট এসে পৌঁছে গেছে ।

Tier-2:

তো Tier-1 কোম্পানি ছাড়াও Tier-2 এবং Tier-3 এই দুই স্তরের মধ্য দিয়ে আপনার হাত পর্যন্ত ইন্টারনেট আসে । Tier-1 কোম্পানিগুলো সমুদ্র তীরবর্তী পর্যন্ত ক্যাবল কানেকশন নিয়ে এলো । তারপর বিভিন্ন কোম্পানি (যেমন ভারতের ক্ষেত্রে Airtle, Vodafone এবং বাংলাদেশের ক্ষেত্রে Banglalink, Robi) এই সমস্ত কোম্পানিগুলো Tier-1 কোম্পানির কাছ থেকে ক্যাবলের মাধ্যমে কানেকশন নেয় এবং প্রতি জিবি হিসেবে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা Tier-1 কোম্পানিকে দেয় । এই Airtle, Vodafone, Banglalink, Robi এদেরকে বলা হয় Tier-2 কোম্পানি ।

Tier-3:

এছাড়া লোকাল এরিয়াতে কিছু ISP বা Internet Service Provider রয়েছে । যেমন ভারতে Hat Way, Asia Net এবং বাংলাদেশে Free Land, BD Com এইগুলোকে বলা হয় Tier-3 কোম্পানি । এগুলো শুধু লোকাল এরিয়াতে সার্ভিস প্রোভাইড করে । তো এভাবেই ইন্টারনেট আপনার হাত পর্যন্ত এসে পৌঁছায় ।

এবার আসুন জানি ইন্টারনেটের মালিক কে ?
ইন্টারনেটের কোন মালিক নেই । বিভিন্ন দেশের Tier-1 কোম্পানিগুলো নিজেদের টাকায় সমুদ্রের মধ্যে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল বিছায় ।

ইন্টারনেটের জন্য কেমন খরচ হয় ?
ধরুন আপনার বাড়ি থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে আপনার অফিস পর্যন্ত ক্যাবল বিছিয়ে দিলেন এবং দুই প্রান্তে দুইটা কম্পিউটার কানেক্ট করে দিলেনএবার আপনি বলতে পারেন এটা একটা ইন্টারনেট । আসলে ইন্টারনেট একদম ফ্রি । ইন্টারনেটের জন্য কোন টাকা লাগে না । টাকা লাগে শুধু ক্যাবলের জন্য আর এটার রক্ষণাবেক্ষণের জন্য ।

এভাবেই Tier-1 কোম্পানিগুলো বিভিন্ন দেশের সমুদ্রের মধ্য দিয়ে অপটিক্যাল ফাইবার ক্যাবল বিছিয়ে সমগ্র পৃথিবীকে যুক্ত করেছে । আর এভাবেই যাত্রা শুরু করে ইন্টারনেট । ক্যাবলগুলো যেহেতু সমুদ্রের নিচে থাকে তাই এগুলো কেটে যেতে বা ফেটে যেতে পারে অথবা বিভিন্ন সামুদ্রিক প্রাণী সেগুলোকে নষ্ট করে ফেলতে পারে । তাই কোম্পানিগুলো ব্যাকআপ হিসেবে একসাথে অনেকগুলো ক্যাবল বিছিয়ে রাখে । আর এই ক্যাবলগুলোর স্থায়িত্ব মাত্র ২৫ বছর । তাই নির্দিষ্ট সময় অন্তর অন্তর এই ক্যাবলগুলো পরিবর্তন করতে হয় । তো এবার নিশ্চয় বুঝতে পারছেন যে, ইন্টারনেট একদম ফ্রি । টাকা লাগছে শুধু ক্যাবলের এবং এটার রক্ষণাবেক্ষণের ।

এই ছিল আজকের বিস্তারিত আলোচনা । জানিনা আপনাদের কতটুকু বুঝাতে পেরেছি । তবুও যদি ভালো লেগে থাকে আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করে তাকেও জানার সুযোগ করে দিন । তবেই আমাদের লিখা সার্থক হবে । আর আমরা আরও ভালো ভালো আর্টিকেল লিখতে উৎসাহ পাবো ।

শেষ কথাঃ আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আলোচ্য আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ । আমি আশা করবো উক্ত আর্টিকেলটির মাধ্যমে আপনি সামান্য কিছু হলেও জানতে, বুঝতে ও শিখতে পেরেছেন । তারপরও যদি কারও বুঝতে অসুবিধা হয় কিংবা কোন প্রকার সমস্যা হয় তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা আপনার সমস্যা সমাধানের জন্য চেষ্টা করবো, ইনশাআল্লাহ।
আজ এ পর্যন্তই । আবার আপনাদের সামনে হাজির হবো অন্য কোন প্রযুক্তি বিষয়ক আর্টিকেল নিয়ে । ততদিন সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন আর টেক রাজ্যের সাথেই থাকুন । ধন্যবাদ...



আপনি কি জানেন ইন্টারনেটের মালিক কে ? আপনি কি জানেন ইন্টারনেটের মালিক কে ? Reviewed by CEO on Thursday, June 06, 2019 Rating: 5

No comments:

It can be commented that the post was good. You can also comment on any problem. We will try to solve as much as possible.

Powered by Blogger.