এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়!


হ্যালো বন্ধুরা, TechRajjo.Com – Create Your Own Creativity তে আপনাকে স্বাগতম । কেমন আছেন সবাই ? নিশ্চয় ভালো আছেন । আর ভালো আছেন বলেই হয়তো আমাদের টেক রাজ্য থেকে আপনার পছন্দের এই আর্টিকেলটি পড়তে বসছেন । আমরা আমাদের টেক রাজ্যে প্রতিনিয়ত প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন আর্টিকেল শেয়ার করে থাকি । যাতে মানুষ প্রযুক্তিকে সহজে জানতে ও বুঝতে পারে ।  তারই ধারাবাহিকতায় আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি প্রযুক্তি বিষয়ক আরেকটি আর্টিকেল । পোস্টের টাইটেল পড়ে এতক্ষণে নিশ্চয় বুঝে গেছেন যে, আজকে আমরা কোন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো ।

তার আগে আপনার কাছে আমাদের রিকুয়েস্ট, আপনি যদি আমাদের ব্লগটি সাবস্ক্রাইব না করে থাকেন, তাহলে এখনি সাবস্ক্রাইব করে নিন । তাহলে প্রযুক্তি বিষয়ক নিত্যনতুন আর্টিকেল সবার আগে পৌঁছে যাবে আপনার কাছে ।

তাহলে চলুন আর কথা না বাড়িয়ে মূল আলোচনায় ফিরে যাই ।

এমন একটা সময় ছিল যখন এন্ড্রয়েড ফোন রুট করা অনেক কঠিন একটা ব্যাপার ছিল কিন্তু বর্তমান সময়ে রুট করাটা অনেক সহজতর একটা ব্যাপার হয়ে গেছে। আমি আপনাদেরকে ০২ টি উপায়ে রুট করার কৌশল দেখাবো। দুটির মধ্যে একটি কম্পিউটারের মাধ্যমে এবং অপরটি দেখাবো কিভাবে কম্পিউটার ছাড়াও আপনার নিজস্ব মোবাইলের মাধ্যমে রুট করতে হয়। এই দুইটি পদ্ধতীই সহজ এবং বর্তমান সময়ের জন্য খুবই নিরাপদ। যাদের কম্পিউটার কিংবা ল্যাপটপ নেই তারা চাইবে মোবাইলের সাহায্যে রুট করে নিতে। আর যাদের কম্পিউটার আছে তারা ইচ্ছা করলে যে কোন একটি উপায়ে রুট করে নিতে পারবেন। সবার চাহিদার কথা ভেবে আমি আপনাদের জন্য এই দুইটি পদ্ধতি একসাথে শেয়ার করে দিলাম।

কিন্তু তার আগে আমাদের জানতে হবে রুট কি এবং কেন ?  তাহলে চলুন প্রথমে জেনে নিই এই প্রশ্নগুলোর উত্তরে কি আছে ।

TechRajjo.Com
 
root-android-device


রুট কিঃ শব্দটি এতোই প্রচলিত হয়ে গেছে যে, Root User বলার বদলে সবাই এটিকে সরাসরি Root বলে থাকে। সবচেয়ে সহজ শব্দে বলা যায়, Root হচ্ছে এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর বা প্রশাসক। যদিও এর বাংলা অর্থ গাছের শিকড়লিনাক্সের জগতে Root বলতে সেই পারমিশন বা অনুমতিকে বোঝায়, যা ব্যবহারকারীকে সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী করে তোলে। Root হচ্ছে একটি এ্যাডমিনিষ্ট্রেশন পারমিশন বা অনুমতি। এই অনুমতি থাকলে ব্যবহারকারী সেই ডিভাইসে যা ইচ্ছে তাই করতে পারেন। উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে ব্যবহারকারী এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর প্রিভিলেজ ছাড়া সিস্টেম ফাইলগুলো নিয়ে কাজ করতে পারেন না। লিনাক্সেও তেমনি Root পারমিশন প্রাপ্ত ইউজার ছাড়া সিস্টেম এ্যাডমিনিষ্ট্রেশনের কাজগুলো করা যায় না। যিনি লিনাক্স-চালিত কম্পিউটার বা সার্ভারে যা ইচ্ছে তাই করতে পারেন অথবা যার সব কিছু করার অনুমতি রয়েছে, তাকেই Root User বলা হয়।

এখানে আপনাকে আমি একটা কথা আগেই বলে দিতে চাই সেটা হল – জরুরি প্রয়োজন না হলে আপনি আপনার ফোনটি Root করবেন না । কারন Root করার ফলে আপনার ফোনের যে ওয়ারেন্টি বা গ্যারান্টি রয়েছে সেটা নষ্ট হয়ে যাবে । ফলে আপনার ফোনে কোন সমস্যা হলে ওয়ারেন্টি কার্ড থাকার পরেও আপনি কোম্পানি থেকে আপনার ফোনের জন্য ফ্রি সার্ভিস পাবেন না । আর যদি আপনার ফোনের ওয়ারেন্টি আগেই শেষ হয়ে গিয়ে থাকে তাহলে সেটা আলাদা বিষয় ।

 এবার চলুন দেখি কিভাবে আপনি আপনার ফোনটি রুট করবেন ।

 ×আপডেটঃ এই পোষ্টটি সর্বশেষ ০৯/০২/২০১৮ তারিখে আপডেট করা হয়েছে।

 প্রথম পদ্ধতিঃ কম্পিউটারের মাধ্যমে রুট

যাদের কম্পিউটার আছে তারা অবশ্যই এই পদ্ধতিতে রুট করে নেবেন। কারণ এটি সম্পূর্ণ নিরাপদ অর্থাৎ মোবাইল ব্রিক করার কোন প্রকার ঝুকি নেই। এ পদ্ধতিতে এন্ড্রয়েড এর যে কোন ভার্সন-কে রুট করতে পারবেন। মোবাইল রুট করার ক্ষেত্রে এ সফটওয়্যারটি কোন কোন ধরনের ডিভাইস সাপোর্ট করছে সে বিষয়ে তাদের অফিসিয়াল সাইট থেকে বিস্তারিত জানতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে তাদের তালিকায় আপনার ডিভাইসটি রয়েছে কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারবেন। তাহলে দেরী না করে এবার কাজের কথায় আসি।
  • প্রথমে Kingo Android Root সফটওয়্যারটি আপনার কম্পিউটারে ডাউনলোড করে Install করে নিন।
  • Install করার পর সফটওয়্যারটি Run করলে নিচের চিত্রের মত শো করবে।

TechRajjo.Com
 
kingo root device not connected

  • এবার আপনার মোবাইলে Settings থেকে Developer Options যেতে হবে। Developer Options অন করে Enable USB Debugging এ ঠিক চিহ্ন দিতে হবে। এটি করার জন্য নিচের চিত্রে দেখুন-
TechRajjo.Com
 
USB-Debugging

  • তারপর USB Cable এর মাধ্যমে আপনার মোবাইলটি কম্পিউটারের সাথে Connect করুন।
  • Connect হওয়ার পর এটি অটোমেটিক্যালি ড্রাইভার ডাউলোড করে Install করে নেবে। এর জন্য অবশ্যই আপনার কম্পিউটারটি internet এর সাথে Connected থাকতে হবে।
  • ড্রাইভার Install হওয়ার পর মোবাইলটি কম্পিউটার থেকে Disconnect করে আবার Connect করলে নিচের চিত্রের মত দেখতে পাবেন।
TechRajjo.Com
 
mobile-root-connection

  • এখানে শুধু ROOT এ ক্লিক করলেই  আপনার মোবাইলটি রুট হতে শুরু করবে। এর মধ্যে আপনাকে কিছুই করতে হবে না। Root হওয়ার জন্য ৩ থেকে ৪ মিনিট সময় নিতে পারে
  • ব্যাস, আপনার ফোনটি রুট হয়ে গেল । রুট কমপ্লিট হওয়ার পর নিচের চিত্রের মতো Success ম্যাসেজ শো করলে Finish Button এ ক্লিক করতে হবে।

TechRajjo.Com
 
root-success

  • তারপর আপনার মোবাইলটি রিস্টার্ট করুন। ব্যাস, আপনার ফোনটি রুট হয়ে গেল ।

বিশেষ বার্তাঃ দীর্ঘ দিন থেকে Kingo Root শুধুমাত্র কম্পিউটার এর মাধ্যমে এন্ড্রয়েড ফোন Root করার সুবিধা দিয়ে আসছিল। পরবর্তীতে তারা Kingo Root এর Apk ভার্সন বের করেছে। ফলে যাদের হাতের নাগালে কম্পিউটার নেই তারাও অত্যান্ত কার্যকরী এই App টি দিয়ে সহজে এন্ড্রয়েড মোবাইলটি রুট করে নিতে পারবেন।

স্পেশাল টিপসঃ রুট করতে কোন প্রকার সমস্যা হলে Kingo Root এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হতে রুট করার টিউটোরিয়াল দেখে নিতে পারেন। তারা তাদের অফিসিয়াল সাইটে সকল ধরনের ডিভাইস রুট করার টিউটোরিয়াল শেয়ার করেছে।

 দ্বিতীয় পদ্ধতীঃ মোবাইলের মাধ্যমে রুট

এ পদ্ধতীতে দেখাবো কিভাবে Kingroot এ্যাপ দিয়ে মোবাইলের মাধ্যমে খুব সহজে আপনার এন্ড্রয়েড ফোন রুট করবেন। নামের দিক থেকে Kingo Root এবং Kingroot দেখতে প্রায় এক রকম হলেও একটু মনোযোগ সহকারে দেখলে নামের পার্থক্য বুঝা যায়। এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার জন্য বর্তমান সময়ে এটি খুবই সহজ এবং জনপ্রিয় একটি এ্যাপ। এটি শুরুর দিকে শুধুমাত্র Chines Version ছিল কিন্তু পরবর্তীতে English Version বের হয়েছে। এটি দিয়ে মাত্র এক ক্লিক করেই আপনার ফোনটি রুট করতে পারবেন। এটি দিয়েও এন্ড্রয়েড এর প্রায় সকল আপডেট ভার্সন পর্যন্ত রুট করা যায়।
  • প্রথমে এখান থেকে এ্যাপটি ডাউনলোড করে Install করুন।
  • Install হওয়ার পর এ্যাপটি Open করলে কিছুক্ষনের মধ্যে আপনার মোবাইলটি Scan হবে এবং নিচের চিত্রটি শো করবে। রুট করার জন্য অবশ্যই আপনার মোবাইলের ইন্টারনেট Active করে রাখবেন।
এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়
  • এখানের নীল রংয়ের Try it বাটনে ক্লিক করলে ফোনের রুট Status Verify শুরু করবে।

এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়

  •  উপরের চিত্রে দেখুন ফোনের Root Status Verify করছে।
এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়

  • উপরের চিত্রের নীল কালারের Start Root বাটনে ক্লিক করলে আপনার মোবাইল রুট হওয়া শুরু করবে।

এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়
  • উপরের চিত্রটিতে ১০০% না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন । এতে ২ থেকে ৩ মিনিট সময় লাগতে পারে । ১০০% হয়ে গেলে নিচের চিত্রের মতো আপনার ফোনের Screen Success ম্যাসেজ শো করবে ।

এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়

  • এখন আপনার মোবাইলটি Restart করুন। ব্যাস, আপনার ফোনটি রুট হয়ে গেল ।
  • এরপর শুধু KingUser টি রেখে বাকী সব Extra এ্যাপ Uninstall করতে পারেন।
  • এখন থেকে আপনার মোবাইলটি  রুটেড ডিভাইস। Restart হওয়ার পর মোবাইলে SuperSU নামের একটি এ্যাপ দেখতে পাবেন। এটি হচ্ছে আপনার রুট এ্যাপ/ইউজার।
স্পেশাল টিপসঃ রুট করতে কোন প্রকার সমস্যা হলে KingRoot এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হতে রুট করার টিউটোরিয়াল দেখে নিতে পারেন।

বিশেষ অনুরোধঃ আপনি যদি আমাদের ব্লগটি সাবস্ক্রাইব না করে থাকেন, তাহলে এখনি সাবস্ক্রাইব করে নিন । তাহলে প্রযুক্তি বিষয়ক নিত্যনতুন আর্টিকেল সবার আগে পৌঁছে যাবে আপনার কাছে

শেষ কথাঃ আপনার মূল্যবান সময় ব্যয় করে আলোচ্য আর্টিকেলটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ । আমি আশা করবো উক্ত আর্টিকেলটির মাধ্যমে আপনি সামান্য কিছু হলেও জানতে, বুঝতে ও শিখতে পেরেছেন । তারপরও যদি কারও বুঝতে অসুবিধা হয় কিংবা কোন প্রকার সমস্যা হয় তাহলে কমেন্ট করে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা আপনার সমস্যা সমাধানের জন্য চেষ্টা করবো, ইনশাআল্লাহ।

আজ এ পর্যন্তই । আবার আপনাদের সামনে হাজির হবো  অন্য কোন প্রযুক্তি বিষয়ক আর্টিকেল নিয়ে । ততদিন সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন আর টেক রাজ্যের সাথেই থাকুন । ধন্যবাদ...

এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়! এন্ড্রয়েড ফোন রুট করার সবচেয়ে সহজ এবং ১০০% নিরাপদ উপায়! Reviewed by CEO on Friday, May 10, 2019 Rating: 5

No comments:

It can be commented that the post was good. You can also comment on any problem. We will try to solve as much as possible.

Powered by Blogger.