সম্প্রতি সময়ের ১০ টি গুরুত্বপূর্ণ Google SEO টিপস

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর ফলে আপনার ব্লগ/ওয়েবসাইট-কে Search Engine এর নিকট অত্যাধীক বিশ্বস্ত করে তুলে। যার ফলে আপনার ওয়েবসাইটটি সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে ভিজিটরদের যে কোন প্রশ্নের উত্তর দিতে সক্ষম হয়। কারণ যে কোন ওয়েবসাইটে ভিজিটররা প্রবেশ করেন সার্জ ইঞ্জিনের মাধ্যমে। বর্তমান সময়ে দেখা যায় শুধু মাত্র Google Search Engine এর মাধ্যমে ৮০% লোক তাদের সকল কাজ সেরে নেন। এই জন্য Google Search Engine-কে টার্গেট করতে পারলে আপনি ৮০% ভিজিটর পেয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। বাকী ২০% পাওয়ার জন্য আপনাকে Yahoo এবং Bing সার্চ ইঞ্জিন-কে অপটিমাইজেশন করতে হবে। আপাতত আমি আজকে Google Search Engine-কে নিয়ে কিছু টপিক লিখবো। পরবর্তীতে কোন এক দিন বাকী সার্চ ইঞ্জিন গুলো নিয়ে লিখার চেষ্টা করবো। আমাদের আজকের এই পোষ্টের প্রধান উদ্দেশ্যে হচ্ছে গুগল SEO সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় জানা এবং গুগল থেকে আমাদের ব্লগে ভিজিটর নিয়ে আসা।

Google-SEO-Tips

নিচে Google Search Engine অপটিমাহজেশনের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ টপিক তুলে ধরা হলোঃ
  • কখনই Google Search Engine নিয়ে কোন প্রকার ভূল পোষ্ট/টপিক লিখবেন না।
  • ভাল র‌্যাংকিং পাওয়ার জন্য Google Policy এর বহিঃভূত কোন প্রকার পন্থা অবলম্বন করা যাবে না।
  • অনেক প্রচেষ্টা ছাড়া বিস্ময়কর ইতিবাচক ফলাফল কিংবা দ্রুত গতিতে ভাল ফলাফলের আশা করবেন না। ভাল ফলাফলের জন্য প্রচুর পরিমানে পরিশ্রম করতে হবে। গুগল এমন একটি প্রতিষ্ঠান যেখানে ইচ্ছা করলে সম্পূর্ণ ফ্রি ভাবে আপনার ওয়েবসাইটকে অপটিমাইজ করতে পারবেন কোন প্রকার মূল্য পরিশোধ ছাড়াই। এর জন্য প্রয়োজন আপনার অক্লান্ত পরিশ্রম।
  • ভাল সার্চ রেজাল্ট পাওয়ার জন্য Google এর সম্পূর্ণ Policy অনুসরণ করতে হবে। গুগল Policy অনুসরণ না করে কোন প্রকার কাজ করলে আপনার সাইটটি সার্চ ইঞ্জিনে ভাল ফলাফল পাবে না।
  • আপনার ওয়েবসাইটটি অবশ্যই Google Webmaster Tools এ সাবমিট করে নিবেন। এটি আপনার সাইট এর পোষ্ট গুলি তাড়াতাড়ি সার্চ ইঞ্জিনে নিয়ে আসবে।
  • গুগল সাধারনত আপনার ওয়েবসাইটের র‌্যাংকিং নির্ধারণ করে বিভিন্ন ওয়েবসাইট হতে আগত লিংকের ভিজিটরের মাধ্যমে অর্থাৎ কি রকম বা কি কোয়ালিটির ওয়েবসাইট থেকে আপনার ব্লগে ভিজিটররা আসলো। এ জন্য আপনার ব্লগকে বিভিন্ন ভাল মানের ওয়েবসাইটের সাথে লিংক করতে পারেন। যেমন-বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ওয়েবসাইটে কমেন্ট করার মাধ্যমে ব্যাক লিংক তৈরী করে নিতে পারেন।
  • সার্চ ইঞ্জিন-কে অবশ্যই আপনার পোষ্টের লিংকটি বুঝিয়ে দিতে হবে। যেমন-পোষ্টের লিংক এলোমেলোভাবে না লিখে লিংটিকে যদি গুছিয়ে আপনার পোষ্টের সাথে মিল রেখে করেন তাহলে সার্চ ইঞ্জিন আপনার লিংকটি সহজে পড়ে নিতে পারবে।
  • অনেকে ভাবেন যে, ওয়েবসাইটের বয়স অল্প দিন হলে গুগল ঐ ওয়েবসাইটের জন্য ভাল র‌্যাংকিং দেয় না। আসলে এটা সম্পূর্ণ ভূল একটি ধারনা। গুগল র‌্যাংকিং নির্ভর করে আপনার ব্লগের কনটেন্ট এর কোয়ালিটির উপর। আপনার ব্লগের কনটেন্ট এর কোয়ালিটি ভাল হলে আপনার ওয়েভসাইট অল্প দিনে ভাল র‌্যাংকিং পেয়ে যাবে।
  • নির্দিষ্ট একটি টপিক অথবা ৩-৪ টি টপিক নিয়ে আপনার ব্লগিং চালিয়ে যাবেন। বেশিরভাগ ওয়েবসাইটে দেখা যায় কোন নির্দিষ্ট টপিক না লিখে যা ইচ্ছা তাই নিয়ে লিখেন। যেমন-ওয়েব ডিজাইন সম্পর্কে হলে আপনি এই টপিক নিয়েই লিখেন অথবা এর কাছাকাটি টপিক নিয়ে লিখা-লিখি করেন। হ-য-ব-র-ল ভাবে সব বিষয় নিয়ে লিখবেন না। এতে করে আপনার ওয়েবসাইটের ভাল র‌্যাংক পাবেন না।
  • ভালমানের টপিক লেখার জন্য Key word রিসার্চ করতে পারেন। এত করে আপনি জানতে পারবেন আপনার বিষয়ে কোন কোন কী ওয়ার্ড গুলি হাই লেভেলের আর কোন কী ওয়ার্ড গুলি লো লেভেলের। এটি আপনার ওয়েবসাইট-কে সার্চ ইঞ্জিনের কাছে মান সম্মত ওয়েবসাইট হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেবে।
সম্প্রতি সময়ের ১০ টি গুরুত্বপূর্ণ Google SEO টিপস সম্প্রতি সময়ের ১০ টি গুরুত্বপূর্ণ Google SEO টিপস Reviewed by CEO on Friday, April 26, 2019 Rating: 5

No comments:

It can be commented that the post was good. You can also comment on any problem. We will try to solve as much as possible.

Powered by Blogger.